• সার্চ
  • সার্চ
একা ভ্রমণ - একাকী ভ্রমণ করার টিপস - GoArif

একা ভ্রমণ: একাকী ভ্রমণ করার টিপস

একা ভ্রমণ: একাকী ভ্রমণ করার জন্য কি কি টিপস জানা প্রয়োজন তা আমরা আজ GoArif ট্রাভেল সাইট থেকে জানার চেষ্টা করব। যারা এখন পর্যন্ত একাকী ভ্রমণ করেননি তাদের জন্য এই ভ্রমণ টিপস গুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

চলুন শুরু করা যাক…

অনেকেই আছেন তাদের প্রথম আকাকী ভ্রমণ (Solo Travel) সম্পর্কে অনেক কথা বলে থাকেন। প্রথম একা ভ্রমণ করে কি কি অভিজ্ঞতা হয়েছে, প্রথম ভ্রমণ কোথায় করেছেন, ভ্রমণে কি কি দেখেছেন ইত্যাদি।

একা ভ্রমণ করে অনেকের খুব মজার অভিজ্ঞতা রয়েছে আবার অনেকের খুব খারাপ বাজে অভিজ্ঞতাও হয়েছে। তবে ভালো খারাপ অভিজ্ঞতা নির্ভর করে আপনার ভ্রমণ কৌশল ও পরিবেশের উপর।

একা ভ্রমণ নিজেকে জানার সবচেয়ে বড় মাধ্যম। কথায় আছে, “একা ভ্রমণ নিজেকে সম্পূর্ণরূপে আবদ্ধ করার সুযোগ দেয়।”

অবশ্যই, একা ভ্রমণে বিপদ রয়েছে – যেমন রয়েছে নিরাপত্তা উদ্বেগ, একাকীত্ব এবং ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা হওয়ার সুযোগ।

কিন্তু একটু প্রস্তুতি এবং সাধারণ জ্ঞান আপনাকে টাকা বাঁচাতে এবং এক ভিন্ন রকম অভিজ্ঞতা হওয়ার সুযোগ করে দিবে।

কেন একা ভ্রমণ করবেন?

একাকী ভ্রমণে আপনি যখন ইচ্ছা তখন বিশ্রাম নেয়া থেকে শুরু করে কোথায় কতক্ষণ সময় নিয়ে ভ্রমণ করবেন, কোথায় খাবেন, কি খাবেন, কোথায় থাকবেন, কখন যাবেন ইত্যাদি সিধান্ত গুলো খুব সহজেই নিজের ইচ্ছেমত নিতে পারবেন।

আরেকটি সুবিধা হল যে আপনার ভুলগুলি শুধুমাত্র আপনার। এর জন্য আপনাকে কারও কাছে কৈফিয়ত বা জবাবদিহি করতে হবে না।

শহর থেকে গ্রাম যে স্থানেই ভ্রমণে যান না কেন, কোথা থেকে শুরু করে কোথায় গিয়ে শেষ করবেন এটার জন্য আপনাকে আপনার বন্ধু বা অন্য কারো কাছে জিজ্ঞেস করতে হবে না। নিজের ইচ্ছে মত ঘুরতে পারবেন। আপনার যখন যা ইচ্ছা তাই করতে পারবেন।

Solo Traveling মানে কি? জানেন তো?

কিভাবে নিরাপদে একা ভ্রমণ করবেন

একা ভ্রমণ করার জন্য ভ্রমণকারীর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ভ্রমণ নিরাপত্তা। ভ্রমণে নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ১০টি টিপস পড়ে নিতে পারেন।

আপনাকে নজরদারি করার জন্য বা একজন ভ্রমণ সঙ্গী ছাড়া যে কোন স্থানে ভ্রমণ করা আপনার জন্য খুবই উদ্বেগজনক। যে কোন সময় আপনি যে কোন ছোট বা বড় দুর্ঘটনার শিকার হতে পারেন।

কিন্তু আপনার ভ্রমণ সঙ্গি হিসেবে কয়জন আছেন সেই “সংখ্যা নিরাপত্তা” কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ নয়। একাকী ভ্রমণে নিরাপদ থাকার ভালো উপায় হলঃ ভ্রমণে নিজেকে পর্যটক হিসাবে নিজের দিকে মনোযোগ আকর্ষণ না করা।

নিচে একা ভ্রমণের জন্য কয়েকটি নিরাপত্তা টিপস দেয়াহলঃ

  • বিমানবন্দর থেকে আপনার হোটেল বা শহরের কেন্দ্রে যেতে কতসময় লাগে এবং কত খরচ হতে পারে তা আগেই জেনে রাখুন।
  • একা ভ্রমণে কোথাও যাত্রার পূর্বে বাস, রিক্সা, সিএনজি, অটো রিক্সা বা ট্যাক্সির ভাড়া কত ড্রাইভারকে জিজ্ঞেস করে ঠিক করে নিন।
  • হোটেল বুক করার পূর্বে হোটেল সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিন। হোটেল রিভিও, হোটেল এর মান ইত্যাদি সম্পর্কে যাচাই করে নিন। এগুলো আপনি ইন্টারনেট ঘেটেও জানতে পারবেন।
  • সর্বদা নিজের উপর আস্থা রাখুন। নিজের সিদ্ধান্ত অন্যের উপর ছেড়ে দিবেন না। কোন বিষয়ে আস্থা না পেলে সেটা পরিহার করুণ।
  • ভ্রমণে আপনার সঠিক পরিচয় দিন, এবং সব জায়গায় একই পরিচয় দেয়ার চেষ্টা করুণ। এটা আপনাকে অনেক বিপদ থেকে রক্ষা করবে।
  • রাতে প্রয়োজন ছাড়া বাইরে ঘোরাঘুরি বন্ধ করুন, পাবলিক প্লেসে থাকার চেষ্টা করুণ।
  • আপনার হাঁটাচলা এবং তাকানোর স্টাইল লোকাল মানুষের মত রাখার চেষ্টা করুণ। যাতে অন্য কেউ সন্দেহ না করতে পারে।
  • ভ্রমণে কোট-টাই, ফর্মাল ড্রেস পরিহার করে টিশার্ট বা খোলা জামাকাপড় পড়ার চেষ্টা করুণ।
  • জাকানাকা জামাকাপড় বা জুয়েলারী পড়ে নিজেকে অন্যের কাছে মনোযোগ আকর্ষণ করবেন না।
  • আপনি একা আছেন কখন কাউকে সেটা বুজতে দিবেন না।
  • “ভাই আমি এখানে নতুন এসেছি, ঐ লোকেশনে কীভাবে যাব?” এই টাইপের কথা বলা যাবে না।
  • ভ্রমণে কোথায় যাচ্ছেন এই বিষয়ে আপনার বন্ধু বা পরিবারের সদস্যের সাথে জানিয়ে যাবেন এবং ফোনে, ভিডিও চ্যাট বা ইমেলের মাধ্যমে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার চেষ্টা করবেন।

ভ্রমণে বিভিন্ন দেশের জরুরী নাম্বার গুলো জানেন তো? জেনে রাখুন কাজে লাগবে।

সবাইকে বিশ্বাস করুণ আবার কাউকে না

একা ভ্রমণের সেরা কারণগুলির মধ্যে একটি হল নতুন লোক বা বন্ধুদের সাথে দেখা করা, কিন্তু এটি আপনাকে আরও বেশি ভয়ঙ্কর করে তুলতে পারে।

নতুন বন্ধুদের সাথে Hangout করেন, ভ্রমণ করেন ঠিক আছে তবে আপনি তাদের কে কখন এটা বলবেন না যেঃ আমি এখন টাকা দিচ্ছি, তুমি দিও না বা পড়ে দিও। কারন, অর্থ যার কাছে থাকে তার কথাই বলে। আপনি বিপদে পরলে তারা আপনাকে সাহায্য নাও করতে পারে।

কারন, অনেক বাটপার আছে যাদের কথা শুনে প্রথমে আপনার মনেই হবে না যে এরা আপনার কোন ক্ষতি করতে পারে। মিষ্টি মধু মাখানো কথায় কখনো কান দেয়া যাবে না। নিজের উপর সব সময় আস্থা রাখতে হবে।

ভ্রমণে একাকী খাওয়ার টিপস

ভ্রমণে একাকী খাওয়া দাওয়া করা খুব খারাপ কিছু বা ভয়ের কিছু নয়। তবে ভ্রমণে একাকী খাওয়া দাওয়া করার সময় কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকা প্রয়োজন।

অনেক ভ্রমণ কারি রয়েছেন বিশেষ করে ব্যবসায় ভ্রমণকারী যারা রয়েছেন তারা একাকী খাওয়াদাওয়া করতে পছন্দ করেন না। তারা সাথে অন্য কাউকে বা অনেক কে সাথে নিয়ে একসাথে খেতে পছন্দ করেন।

এবার আমি আপনাকে একাকী রেস্টুরেন্টে খাওয়ার কিছু নিয়ম বলব।

একাকী রেস্টুরেন্টে খাওয়ার কিছু নিয়মঃ

  • রাস্তার পাশের রেস্টুরেন্ট গুলোতে খেতে করেন।
  • খাওয়ার পূর্বে অবশ্যই রেস্টুরেন্ট এর খাবার তালিকা এবং মূল্য দেখে নিবেন।
  • খাওয়ার সময় অনেকেই মোবাইল ব্যাবহার করতে থাকেন, সেই সময় আপনার পাশে রাখা আপনার ট্রাভেল ব্যাগটি গায়েব হয়ে যেতে পারে। তাই, খাওয়া এবং মোবাইল ব্যাবহারের পাশাপাশি ব্যাগ এর দিকেও লক্ষ্য রাখুন।
  • অনেকে রেস্টুরেন্টে ঢুকেই আগে মোবাইল চার্জ দেন এবং খাওয়া দাওয়া শেষে মোবাইল নিয়ে আসতে ভুলে যান। এটা মোটেও করা যাবে না। একেবারে প্রয়োজন ছাড়া রেস্টুরেন্টে মোবাইল চার্জ না দেয়াই ভালো।
  • যে রেস্টুরেন্টে খেতে ঢুকছেন সেটার খাবারের মান ভালো কিনা যাচাই করে নিন।
  • রেস্টুরেন্টে ঢুকে ফ্রেশ হওয়ার সময় ব্যাগ সাথে রাখুন অথবা রেস্টুরেন্ট ম্যানেজার এর কাছে রেখে যেতে পারেন।
  • রেস্টুরেন্ট এর ওয়াশরুমে কতটুকু প্রাইভেসি রয়েছে সেটা লক্ষ্য রাখুন।

স্মার্ট ভ্রমণ কারীদের জন্য আরওঃ


আমার ফেসবুকঃ GoArif

ট্রিপডো ব্লগ এর কোথাও কোন ভুল বা অসংগতি আপনার দৃষ্টিগোচর হলে তা অনুগ্রহ করে আমাদের অবহিত করুন, যেন আমরা দ্রুত সংশোধন করতে পারি।
আরিফ হোসেন

আমি একজন ভ্রমণ পিপাসু। ভ্রমণ করতে আমার খুবই ভালো লাগে। তাইতো সময় পেলে ভ্রমণে ছুটে যাই। কোন ভ্রমণই আমার শেষ হয়ে শেষ হয় না। বারংবার আমার সেই স্থানে ছুটে যেতে ইচ্ছে করে। কারন, আমি যে প্রকৃতি ভালবাসি।

সব পোস্ট দেখুন

মন্তব্য করুণ

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

2টি মন্তব্য